বুধবার   ২০ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৬ ১৪২৬   ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
শাহজালালে পৌঁছেছে পাকিস্তানের ৮২ টন পেঁয়াজ ক্রিকেটের সঙ্গে টেনিসও এগিয়ে যাচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী পটুয়াখালীতে বাস চলাচল শুরু রিফাত হত্যা : চার্জ গঠন ২৮ নভেম্বর র‌্যাব-৮ এর অভিযানে শীর্ষ সন্ত্রাসী গ্রেফতার ৭ ডিসেম্বর বিচারবিভাগীয় সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী বরিশাল বোর্ডে এসএসসিতে বৃত্তি পাচ্ছেন ১৪১৭ শিক্ষার্থী কবি সুফিয়া কামালের মৃত্যুবার্ষিকী আজ বরিশাল বোর্ডে এসএসসির ফরম পূরণে সময় বাড়লো জাতীয় অর্থনীতিতে নারীর অবদান সবচেয়ে বেশি: পলক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ট্রাক মালিকদের ফের বৈঠক আজ চক্রান্তকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে: ওবায়দুল কাদের দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী লবণের দাম বাড়ালে জেল-জরিমানা : বাণিজ্যমন্ত্রী লবণ নিয়ে গুজবে কান দিবেন না: শিল্প মন্ত্রণালয় গলাচিপায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত ২০২১ সালের মধ্যে ১০০০ উদ্যোক্তা তৈরিতে সহায়তা দেবে সরকার পদ্মাসেতুর প্রায় আড়াই কিলোমিটার দৃশ্যমান সেনা কল্যাণ সংস্থার চারটি স্থাপনা উদ্বোধন মালিতে জঙ্গি হামলায় ২৪ সেনা নিহত
৩০

গৃহকর্মীর বিজনেস কার্ড ভাইরাল, থামছে না চাকরির অফার

প্রকাশিত: ৮ নভেম্বর ২০১৯  


আজকাল বাসা-বাড়ির কাজ করতে গৃহকর্মী খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন। সবখানেই প্রচুর চাহিদা তাদের। তবে, কষ্টসাধ্য এই পেশায় চাকরি হারানোর ঝুঁকিও রয়েছে যথেষ্ট। কোনো কারণে মনিবের মনোক্ষুণ্ন হলেই মুহূর্তেই চাকরি শেষ! এমন বিপদে পড়েই সম্প্রতি বিজনেস কার্ড ছাড়া হয়েছিল এক গৃহকর্মীর। সঙ্গে সঙ্গে ভাইরাল হয়ে যায় সেটি। এরপর থেকে নতুন চাকরির অফার যেন থামছেই না। দেশের দূর-দূরান্ত থেকে ডাক আসছে তাদের বাসায় কাজ করে দেওয়ার জন্য।

সম্প্রতি এ ঘটনা ঘটেছে পাশের দেশ ভারতে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, ধনশ্রী শিনদে নামে এক নারী একদিন অফিস থেকে বাসায় ফিরে দেখেন গৃহকর্মী, যাকে তিনি গীতা মাসি বলে ডাকেন, তাকে খুব বিষণ্ন দেখাচ্ছে। কারণ, কিছুক্ষণ আগেই একটি চাকরি হারিয়েছেন তিনি। অর্থাৎ দরিদ্র এ গৃহকর্মীর মাসিক আয় হঠাৎ করেই চার হাজার রুপি কমে গেছে।

গীতাকে এই বিপদ থেকে উদ্ধারে নামেন একটি ডেভেলপার কোম্পানির সিনিয়র ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ধনশ্রী। নিজের বুদ্ধি-অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ওই গৃহকর্মীর জন্য তৈরি করেন চমৎকার একটি বিজনেস কার্ড। ওই কার্ডে গীতার ফোন নাম্বারসহ উল্লেখ করা হয় বিভিন্ন কাজের জন্য বিভিন্ন পরিমাণ অর্থের কথা। যেমন- ঘর ঝাড়ু দিতে ৮০০ রুপি, কাপড় ধুতে ৮০০ রুপি, রুটি বানাতে হলে এক হাজার রুপি প্রভৃতি।

প্রাথমিকভাবে এমন একশ’ বিজনেস কার্ড ছাপিয়ে বিলি করা হয় এলাকার বিভিন্ন বাসা-বাড়িতে। কিন্তু, ছোট্ট এই পরিকল্পনা যে এত বড় ঝড় তুলবে এটা আশা করেননি ধনশ্রী বা গীতা মাসি কেউই। তাদের এই ঘটনার বিবরণ বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার করেন অস্মিতা জাভাদেকর নামে এক নারী। মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় ওই বিজনেস কার্ডের ছবি।

অস্মিতা জানান, এরপর থেকে গীতা মাসির মোবাইল ফোন অনবরত বেজে চলেছে। ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তার কাছে চাকরির অফার আসছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকেই ধনশ্রীর এমন অভিনব আইডিয়ার প্রশংসা করেছেন। ছোট কিন্তু কার্যকর পদক্ষেপের মাধ্যমে একজন দরিদ্র নারীর বিপদ দূর করায় অসংখ্য মানুষ ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাকে। 

এই বিভাগের আরো খবর