বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
সড়ক পরিবহন আইনের অসঙ্গতি দূর করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ‘বিএনপি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব সৃষ্টি করছে’- কাদের অনার্স ২য় বর্ষের ২৫ নভেম্বরের পরীক্ষা স্থগিত কোন অপপ্রচারে কান না দিতে জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ‘গোলাপি’ যাত্রা রাঙ্গাতে কাল মাঠে নামছে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে বাংলাদেশ এখন সম্মানের দেশ: প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় আ. লীগের অভ্যর্থনা উপকমিটির সভা ইউনেস্কোর সাধারণ অধিবেশনে অংশ নিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা দুদকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ সশস্ত্র বাহিনী নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবেন- প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আইভোরি কোস্টের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ সশস্ত্র বাহিনী জাতির গর্বের প্রতীক : রাষ্ট্রপতি আজ বিশ্ব টেলিভিশন দিবস সারাদেশের পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন লিখতে হবে স্পষ্ট অক্ষরে: হাইকোর্ট আজ সশস্ত্র বাহিনী দিবস শাহজালালে পৌঁছেছে পাকিস্তানের ৮২ টন পেঁয়াজ ক্রিকেটের সঙ্গে টেনিসও এগিয়ে যাচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী
৪৪

ফেসবুক-ইউটিউব ব্যবহারে লাইসেন্স লাগবে: মোস্তাফা জব্বার

প্রকাশিত: ৩১ অক্টোবর ২০১৯  

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের একটা ‘লাইসেন্স’ (অনুমতিপত্র) করতে হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করতে আরো একটু সময় লাগবে। কারণ এর সাথে কিছু জনসচেতনতামূলক কার্যক্রমও জড়িত।

মন্ত্রী বলেন, সচেতনতা তৈরির কাজটি আমরা অবিলম্বেই শুরু করতে যাচ্ছি। তবে তা বাস্তবায়ন করতে একটু সময় লাগবে। আসলে আমরা এখানে যে পদ্ধতিতে কাজটা করতে চাচ্ছি তাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের একটা ‘লাইসেন্স’ (অনুমতিপত্র) করতে হবে।

একটা ‘সফটওয়্যার ডাউনলোড’ করে খুব সহজে লাইসেন্সটি করা যাবে জানিয়ে মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমাদের দেশের লোকজনের স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভালো কাজ করার ইচ্ছে সহজে হয় না। যে কারণে এই ‘লাইসেন্স’ করাতে হয়তো আমাদের একটু কষ্ট করতে হবে। যন্ত্রপাতি বসানো যেহেতু হয়ে গেছে, বাকি কাজও সহসাই হয়ে যাবে বলে আশা করছি।

তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেখানে প্রকাশিত ‘কনটেন্ট’ নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে সরকার। দেশের বাইরে বসেও কেউ আপত্তিকর কিছু প্রকাশ করলে তা এখানে দেখা যাবে না।আমরা যে কোনো ‘কনটেন্ট ব্লক’ (প্রকাশনা অবরুদ্ধ) করতে পারবো। আপনার ‘একাউন্টের’ একটা ‘কমেন্ট’ আমার মুছে ফেলা দরকার হলে আমি সেটাও মুছে ফেলতে পারব।

তবে বাংলাদেশের বাইরে থেকে সেগুলো দেখা যাবে।

মন্ত্রী বলেন, দেশের বাইরে-তো আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারব না। কারণ ফেসবুক দুনিয়া জুড়ে চলবে। আমরা শুধু বাংলাদেশ ভূখণ্ডে ‘সাইবার’ সুরক্ষা দিতে সক্ষম। পর্ণসাইটগুলো যেমন শুধু বাংলাদেশে বন্ধ করা হয়েছে, বিভিন্ন কনটেন্ট এবং অন্যান্য ক্ষেত্রেও যেটা হবে সেটা শুধু বাংলাদেশের ক্ষেত্রেই হবে।

তিনি বলেন, মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে সম্মান দেখিয়ে আসছি এবং দেখিয়ে যাবো। কিন্তু কেউ স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ এবং বঙ্গবন্ধুর (জাতির পিতা শেখ মুজিবর রহমান) বিরোধীতা করলে, সেক্ষেত্রে কোনো আপোষ করা হবে না।

এই প্রকল্পের আওতায় আমরা পর্ণ এবং জুয়ার সাইটগুলো বন্ধ করেছি। নইলে এত দ্রুত ২৫ হাজার সাইট বন্ধ করা সম্ভব ছিল না, বলেন মন্ত্রী।

তীব্র সমালোচনার মুখে ২০১৮ সালে বাংলাদেশের সংসদে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি ‘দুর্বল’ হয়েছে, আরেকটু শক্ত করা উচিত ছিল,’ উল্লেখ করে মন্ত্রী জানান, দেশের স্বার্থ ও নাগরিক সুরক্ষা সুনিশ্চিত করতে আইনটির কিছু জায়গায় পরিবর্তন আনা দরকার।

ফ্রান্স ফেসবুককে ৩২ বিলিয়ন ডলার জরিমানা করেছে, আমাদের আইনেও এমন ব্যবস্থা থাকলে ফেসবুক যখন আমাদের অবজ্ঞা করেছিল তখন আমরা তাদের জরিমানা করতে পারতাম। কিন্তু ‘সোশ্যাল মিডিয়ার’ বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার মতো কোনো বিধিবিধান সেখানে রাখা হয়নি, বলেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, সোশ্যাল মিডিয়াগুলো যদি বাংলাদেশি নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্য কখনো আমাদের অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করে, সে ক্ষেত্রেও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার মতো বিধান আমাদের নেই।

এ ছাড়া ‘ডেটা সিকিউরিটি’ এবং ‘প্রাইভেসির’ বিষয়ও আইনে সংযুক্ত করার কথা ভাবছে সরকার।

এই বিভাগের আরো খবর