শনিবার   ২৩ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬   ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
কলকাতা থেকে দেশে ফিরলেন প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে হিযবুত তাহরীরের আঞ্চলিক প্রধান আটক সরকার আলেমদের সঙ্গে নিয়ে দেশের উন্নয়ন করতে চায়: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী নরসিংদীর এমপি বুবলীকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার চালের বাজার অস্থিতিশীল করলে কাউকে ছাড় নয়: খাদ্যমন্ত্রী ভারত মুক্তিযুদ্ধের সময় পাশে ছিল তা ভুলিনি: প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসকদের নৈতিক শিক্ষা খুবই প্রয়োজন: পরিকল্পনামন্ত্রী সামাজিক মাধ্যমে গুজব বন্ধে বিধিমালা হচ্ছে- তথ্যমন্ত্রী শুক্রবারের মধ্যে যান চলাচল স্বাভাবিক হবে: কাদের ঘণ্টা বাজিয়ে খেলার উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সশস্ত্র বাহিনীকে গড়ে তোলা হবে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সশস্ত্র বাহিনীকে কাজ করার আহ্বান সড়ক পরিবহন আইনের অসঙ্গতি দূর করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ‘বিএনপি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব সৃষ্টি করছে’- কাদের অনার্স ২য় বর্ষের ২৫ নভেম্বরের পরীক্ষা স্থগিত কোন অপপ্রচারে কান না দিতে জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ‘গোলাপি’ যাত্রা রাঙ্গাতে কাল মাঠে নামছে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে বাংলাদেশ এখন সম্মানের দেশ: প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় আ. লীগের অভ্যর্থনা উপকমিটির সভা
১৬

বছরের প্রতিটি দিনই সড়ক নিরাপদ রাখতে হবে: পলক

প্রকাশিত: ২২ অক্টোবর ২০১৯  

বছরের প্রতিটি দিন সড়ক নিরাপদ রাখতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এর জন্য সবাইকে সচেতন হয়ে সতর্কতার সঙ্গে যানবাহন চালানোর আহ্বান জানান তিনি। 

মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) রাজধানীর একটি হোটেলে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস -২০১৯’ উপলক্ষে পাঠাও এবং এটুআই’র উদ্যোগে ‘সেফটি ফার্স্ট’ শিরোনামে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ১৯৯৩ সালের এই দিনে এক সড়ক দুর্ঘটনায় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন তার পরিবারের সদস্যদের হারিয়েছিলেন। সেই দিনটিকে স্মরণে রেখে ২০১৬ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২২ অক্টোবরকে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেন। তবে আমাদের শুধু একদিন বা সাতদিন সড়ক নিরাপদ রাখলে হবে না। বছরের ৩৬৫দিন আমাদের সতর্ক ও সচেতন থেকে সড়ক নিরাপদ রাখতে হবে। 

পলক আরও বলেন, সড়ক নিরাপদ রাখতে হলে আমাদের লাগবে তিনটি ‘ই’। এডুকেশন, ইঞ্জিনিয়ারিং এবং এনফোর্সমেন্ট। সড়ক নিরাপত্তা সম্পর্কে সবাইকে এডুকেশন দিতে হবে, সড়কের প্রকৌশলগত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে এবং আইনের প্রয়োগ করতে হবে। চালক, যাত্রী ও আইন প্রয়োগকারী সবাইকে সচেতন হতে হবে। 

পাঠাও’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হুসেইন মুহাম্মদ ইলিয়াস বলেন, আমরা ২০১৬ সালে প্রথম কাজ শুরু করি পাঠাও নিয়ে। এরপর আমরা এই রাইড শেয়ার সার্ভিস চালু করি ২০১৭ সালের দিকে। বর্তমানে আমাদের দুই লাখ রাইডার রয়েছে। এর মাধ্যমে দেশের অনেক তরুণদের জন্য কর্মসংস্থানের একটি সুযোগ তৈরি হয়েছে। শুধু তাই নয়, বর্তমানে দেশের বাইরে (নেপালে) সফলতার সঙ্গে চলছে পাঠাও। 

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সপ্তাহব্যাপী ক্যাম্পেইন সম্পর্কে তিনি বলেন, সেফটি সপ্তাহে আমরা বিনামূল্যে চালকদের ছয় হাজার হেলমেট বিতরণ করবো। পাশাপাশি সড়কের নিরাপত্তা ও অফলাইন সচেতনতা নিয়ে কাজ করবো। ইতোমধ্যে ঢাকার রাস্তায় আমাদের ভ্যানে প্রচার-প্রচারণা চলছে। এছাড়াও আমাদের পাঠাওয়ের বনানী কার্যালয়ে সপ্তাহব্যাপী চলবে বিনামূল্যে রাইডারদের চক্ষু পরীক্ষা।

অনুষ্ঠানে পাঠাওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও টপ রাইডাররা উপস্থিত ছিলেন। এসময় টপ রাইডারদের মাঝে হেলমেট বিতরণ করে পাঠাও।

এই বিভাগের আরো খবর