বুধবার   ২০ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৫ ১৪২৬   ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
কবি সুফিয়া কামালের মৃত্যুবার্ষিকী আজ বরিশাল বোর্ডে এসএসসির ফরম পূরণে সময় বাড়লো জাতীয় অর্থনীতিতে নারীর অবদান সবচেয়ে বেশি: পলক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ট্রাক মালিকদের ফের বৈঠক আজ চক্রান্তকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে: ওবায়দুল কাদের দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী লবণের দাম বাড়ালে জেল-জরিমানা : বাণিজ্যমন্ত্রী লবণ নিয়ে গুজবে কান দিবেন না: শিল্প মন্ত্রণালয় গলাচিপায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত ২০২১ সালের মধ্যে ১০০০ উদ্যোক্তা তৈরিতে সহায়তা দেবে সরকার পদ্মাসেতুর প্রায় আড়াই কিলোমিটার দৃশ্যমান সেনা কল্যাণ সংস্থার চারটি স্থাপনা উদ্বোধন মালিতে জঙ্গি হামলায় ২৪ সেনা নিহত কন্যা সন্তানের জনক হলেন তামিম কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সভা আজ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী : ৫৪ স্থানে বসছে ক্ষণ গণনার ডিসপ্লে পদ্মা সেতুর ১৬তম স্প্যান বসছে আজ কার্গো বিমানে পেঁয়াজের প্রথম চালান আসছে আজ আজ দেশে ফিরবেন প্রধানমন্ত্রী আইসিসি রায় দিলে সু চি অন্য দেশে পালালেও গ্রেফতার হবেন: শাহরিয়ার
৩৬

বছরে রোগে ভুগে মৃত্যুর ৯ শতাংশই ফুসফুসব্যাধি সংক্রান্ত

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০১৯  


বাংলাদেশে প্রতি বছর রোগে ভুগে মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৮.৬৯ শতাংশ অর্থাৎ প্রায় ৬৮ হাজার ৪৬২ জন ফুসফুস সংক্রান্ত ব্যাধির কারণে মারা যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। 
বুধবার (৬ নভেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ লাং ফাউন্ডেশন (বিএলএফ) আয়োজিত ‘পালমোকন- ২০১৯’  শীর্ষক  ৬ষ্ঠ আন্তর্জাতিক সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। 
বিশেষজ্ঞরা জানান, দেশে প্রতি বছর শুধুমাত্র অ্যাজমা রোগেই আক্রান্ত হয় প্রায় ৭০ লাখ মানুষ। এছাড়া প্রায় ৭০ হাজার টিবি রোগী এ সংক্রান্ত রোগে আক্রান্ত হয়। ফলে শ্বসনতন্ত্র বা শ্বাসতন্ত্রসংক্রান্ত রোগব্যাধিকে দেশের অন্যতম বড় স্বাস্থ্য সমস্যা হিসেবে উল্লেখ করেন বিশেষজ্ঞরা। এ সমস্যা মোকাবিলায় জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানান তারা। 
বিশেষজ্ঞরা আরও জানান, আমাদের দেশে বায়ুদূষণ, তামাকজাত দ্রব্য গ্রহণ ও জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ফুসফসের বিভিন্ন ধরনের রোগের ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। 
বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৮টি দেশের প্রায় ১ হাজার ৩ শ’ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এ সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন। ৩ দিনব্যাপী এ সম্মেলন শেষ হবে ৮ নভেম্বর। সম্মেলনকালে বিভিন্ন কর্মশালা ও বিজ্ঞাভিত্তিক সেশন অনুষ্ঠিত হবে। 
আয়োজকরা আশা প্রকাশ করে, সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীরা তাদের গবেষণা ও ক্লিনিক্যাল অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাধ্যমে ফুসফুস সংক্রান্ত রোগের চিকিৎসার ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে আরো কার্যকর ভূমিকা পালনে সক্ষম হবে। তারা চায়, ফুসফুসের স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি ও পালমোনলজি বিষয়ে সর্বশেষ গবেষণার ফলাফল দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে যাক। 
বিএলএফ’র সভাপতি প্রফেসর মো. আলী হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. আসিফ মুজতবা আহমেদ, প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য প্রফেসর মো. রুহুল আমীন, পালমোকন’র কংগ্রেস চেয়ার প্রফেসর মো. রশিদুল হাসান প্রমুখ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরো খবর