শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৩ ১৪২৬   ০৯ রবিউস সানি ১৪৪১

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
বঙ্গবন্ধুকে ‘ড. অব ল’ সম্মাননা দেবে ঢাবি ইংরেজির পাশাপাশি বাংলায়ও রায় লেখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর সবাই যেন ন্যায়বিচার ও আইনের আশ্রয় পায়: প্রধানমন্ত্রী আজ আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল দিবস বিচার বিভাগের প্রতি মানুষের আস্থা ফিরেছে- প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরছেন মিয়ানমারের জলসীমায় আটক ১৭ জেলে আ`লীগের সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভা সোমবার ফাইনাল নিশ্চিতের লড়াইয়ে টস হেরে ব্যাটিংয়ে সৌম্য-আফিফরা জাতীয় বিচার বিভাগীয় সম্মেলন আজ আওয়ামী লীগের খাদ্য উপ-কমিটির সভা আজ সভাপতির পদ ছাড়া যেকোনো পদে পরিবর্তন হতে পারে : কাদের ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক চিরকালীন: রীভা গাঙ্গুলী সৌম্যের ফিফটিতে ভুটানকে উড়িয়ে দিল বাংলাদেশ বিএনপি বিশৃঙ্খলা করলে আওয়ামী লীগও প্রস্তুত: কাদের চাল নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই : কৃষিমন্ত্রী দেশ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণের পথে এগিয়ে চলছে: তথ্যমন্ত্রী বিএনপিপন্থিদের হট্টগোল কলঙ্কজনক-আদালত অবমাননা অন-অ্যারাইভাল ভিসাসহ বাংলাদেশ-ভারতের নৌপথে খুলছে অনেক জট ‘বিশ্বসুন্দরী’র রোমান্টিক গান নিয়ে হাজির সিয়াম-পরী মেয়েদের রৌপ্য, বাকী জিতেছেন ব্রোঞ্জ
১৬

সেনা কল্যাণ সংস্থার চারটি স্থাপনা উদ্বোধন

প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০১৯  

বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্যদের প্রতিষ্ঠান সেনা কল্যাণ সংস্থার চারটি স্থাপনা উদ্বোধন করেছেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানী মহাখালী রেলক্রসিংয়ের পাশে এসকেএস টাওয়ারে অনুষ্ঠান থেকে সুইচ চেপে স্থাপনাগুলো উদ্বোধন করেন।

নতুন চালু হওয়া স্থাপনার মধ্যে রয়েছে ঢাকায় এসকেএস টাওয়ার ও এসকে বিজনেস মার্ট এবং চট্টগ্রামে সেনা কল্যাণ ট্রেড সেন্টার ও সেনা কল্যাণ কনভেনশন সেন্টার।

সুপার শপ, জুয়েলারি, ফ্যাশন পণ্য, রেস্টুরেন্ট, সিনেপ্লেক্সসহ বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান থাকছে এসকে বিজনেস মার্টে।
অনুষ্ঠানে সেনাপ্রধান বলেন, “সেনা কল্যাণ সংস্থা একটি ব্যবসামুখী সংস্থা। এই প্রতিষ্ঠান থেকে যা আয় হয় সেটা সেনাবাহিনীতে দেওয়া হয় না। তিন বাহিনী থেকে অবসরপ্রাপ্তদের কল্যাণে ব্যয় করা হয়; যা ইনডিরেক্টলি তিন বাহিনীকে সহায়তাই করে।

“সেনা কল্যাণ সংস্থার লভ্যাংশ থেকে শিক্ষা, চিকিৎসা, বিধবা ও অসহায় মানুষের সহায়তা করা হয়ে থাকে। অবসরে যাওয়া সামরিক ব্যক্তিবর্গের পাশাপাশি অসামরিক মানুষও সেই সহায়তা পেয়ে থকেন।”
প্রতিযোগিতার বাজারে নিজেদের সুনাম অক্ষুণ্ন রাখতে পণ্য ও সেবার মান বাড়ানো এবং দামের বিষয়ে সজাগ থাকার আহ্বান তিনি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সেনা বাহিনী, বিমান বাহিনী ও নৌ বাহিনীর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্যদের কল্যাণে ৪৭ বছর ধরে চলছে সেনা কল্যাণ সংস্থার কার্যক্রম। রিয়েল স্টেট, ভোজ্য তেল, এলপিজি, আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন খাতে ব্যবসায়িক তৎপরতা আছে সংস্থাটির। সেনাবাহিনী প্রধান পদাধিকারবলে সংস্থার ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান। 

এই বিভাগের আরো খবর