বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৬ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
সারাদেশের পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন লিখতে হবে স্পষ্ট অক্ষরে: হাইকোর্ট আজ সশস্ত্র বাহিনী দিবস শাহজালালে পৌঁছেছে পাকিস্তানের ৮২ টন পেঁয়াজ ক্রিকেটের সঙ্গে টেনিসও এগিয়ে যাচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী পটুয়াখালীতে বাস চলাচল শুরু রিফাত হত্যা : চার্জ গঠন ২৮ নভেম্বর র‌্যাব-৮ এর অভিযানে শীর্ষ সন্ত্রাসী গ্রেফতার ৭ ডিসেম্বর বিচারবিভাগীয় সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী বরিশাল বোর্ডে এসএসসিতে বৃত্তি পাচ্ছেন ১৪১৭ শিক্ষার্থী কবি সুফিয়া কামালের মৃত্যুবার্ষিকী আজ বরিশাল বোর্ডে এসএসসির ফরম পূরণে সময় বাড়লো জাতীয় অর্থনীতিতে নারীর অবদান সবচেয়ে বেশি: পলক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ট্রাক মালিকদের ফের বৈঠক আজ চক্রান্তকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে: ওবায়দুল কাদের দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী লবণের দাম বাড়ালে জেল-জরিমানা : বাণিজ্যমন্ত্রী লবণ নিয়ে গুজবে কান দিবেন না: শিল্প মন্ত্রণালয় গলাচিপায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত ২০২১ সালের মধ্যে ১০০০ উদ্যোক্তা তৈরিতে সহায়তা দেবে সরকার
৪৩৫

হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে গেলে করনীয়

প্রকাশিত: ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

অজ্ঞান হয়ে যাওয়া, মূর্ছা যাওয়া, সংজ্ঞা হারানো বা মাথা ঘুরে পড়ে যাওয়া যেভাবেই বলা হোক না কেন, ব্যাপারটির সঙ্গে পরিচয় আছে সবারই। অনেকে নিজে এই অবস্থায় পড়েছেন। আবার অন্যকে চোখের সামনে জ্ঞান হারাতে দেখেছেন। চলতি পথে, কর্মস্থলে, বাড়িতে হঠাৎ কাউকে অচেতন হয়ে পড়তে দেখলে আপনি কী করবেন? অসুস্থ ব্যক্তির সহায়তায় এগিয়ে যাওয়া কর্তব্য। এমন পরিস্থিতিতে ঘাবড়ে না গিয়ে প্রাথমিক কিছ– পদক্ষেপ নিলে হয়তো মানুষটার জীবন রক্ষা পাবে।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের নিউরোলজি ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘নানা কারণে মানুষ জ্ঞান হারাতে পারে। বুকে বা মাথায় আঘাত, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ, শরীরে পানিশূন্যতা বা লবণশূন্যতা, রক্তে শর্করার মাত্রা হ্রাস, হঠাৎ রক্তচাপ হ্রাস, হৃদরোগ, মস্তিষ্কে রক্ত সরবরাহে ঘাটতি, মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ বা স্ট্রোক, মৃগীরোগ ইত্যাদি কারণে মানুষ হঠাৎ অজ্ঞান হতে পারে। ওষুধ বা অ্যালকোহলের প্রতিক্রিয়া, এমনিক বিষক্রিয়াও হতে পারে কারণ। আপনার সামনে যে কেউ যে কোনো সময় এমন অবস্থার শিকার হতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে একটি জীবন রক্ষা করতে প্রাথমিক চিকিৎসা সম্পর্কে প্রত্যেকেরই কিছু ধারণা থাকা প্রয়োজন।’

কেউ জ্ঞান হারালে আপনার করণীয়

প্রথমে রোগীর চেতনা কতটুকু আছে বোঝার চেষ্টা করুন। জোরে ডাক দিয়ে দেখুন সাড়া দেয় কিনা।

নাকের কাছে হাত দিয়ে বা বুকের ওঠানামা দেখে বোঝার চেষ্টা করুন শ্বাস-প্রশ্বাস চলছে কিনা।

আক্রান্ত ব্যক্তিকে শুইয়ে দিন। শোয়ানোর সময় চিত বা উপুড় না করে একদিকে কাত করে রাখুন, এতে মুখে জমা লালা গলায় আটকে যাবে না।

মাথার পেছনের দিকে সামান্য হেলিয়ে দিন, যেন মুখ খোলা থাকে। এতে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে সহজ হবে।

টাইট কাপড় পরে থাকলে কাপড় আলগা করে দিতে হবে, বিশেষ করে বুকের, গলার আর কোমরের।

বাতাসের ব্যবস্থা করুন। ফ্যান না থাকলে পত্রিকা বা যে কোনো বস্তু দিয়ে বাতাস করুন।

ভেজা কাপড় দিয়ে মুখ ও ঘাড় মুছে দিন।

শ্বাস বন্ধ থাকলে কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাস দিতে হবে।

রোগীর কাঁধ ঝাঁকি দিয়ে জিজ্ঞেস করুন আপনি ঠিক আছেন কিনা।

যদি শ্বাস-প্রশ্বাস ঠিক থাকে, তবে ৩ মিনিটের মধ্যে জ্ঞান না ফিরে তা হলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নিকটস্থ চিকিৎসাকেন্দ্রে নিয়ে যেতে হবে।

যা করা উচিত নয়

অচেতন ব্যক্তিকে কিছু খাওয়ানোর চেষ্টা করবেন না, মুখে পানি দেবেন না। জ্ঞান হারালে অনেকেই নাকের কাছে জুতা বা স্যান্ডেল ধরেন। এটা উচিত নয়। একইভাবে অজ্ঞান ব্যক্তির মুখে বা গালে চড়থাপ্পড় মেরে জ্ঞান ফেরানোর চেষ্টা করা উচিত নয়।

পূর্বলক্ষণ

জ্ঞান হারানোর আগে কিছু পূর্বলক্ষণ দেখা যায়। যা থেকে আপনি নিজে কিংবা অন্য কারো মাঝে এমন লক্ষণ দেখলে সতর্ক হতে পারেন :

চেহারা ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া

শরীর হঠাৎ ঠা-া হয়ে যাওয়া

প্রচুর ঘামতে থাকা

বমি বমি ভাব

মাথা ঘোরা

সামনের সব বস্তু ঝাপসা দেখা

দ্রুত শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়া

লক্ষণ দেখা দিলে কী করবেন

জ্ঞান হারানোর এক বা একধিক লক্ষণ নিজের মধ্যে দেখা দিলে তাৎক্ষণিক কিছু সতর্কতা আপনাকে পরবর্তী বড় বিপদ থেকে রক্ষা করবে। যদি মনে হয় যে পড়ে যাবেন, তা হলে সঙ্গে সঙ্গে সোজা হয়ে শুয়ে পড়–ন। এমনভাবে শোয়ার চেষ্টা করবেন, যেন মাথার চেয়ে পায়ের অবস্থান কিছুটা উঁচুতে হয়। পায়ের নিচে বালিশ বা অন্য কোনো বস্তু রেখে সহজইে এই ব্যবস্থা করতে পারেন। যদি শোয়ার মতো অবস্থায় না থাকেন, তবে হাঁটু ভাঁজ করে, মাথা সামনে ঝুঁকিয়ে কোনো কিছুর ওপর ভর দিয়ে বসে পড়ান।

সতর্কতা

এমন পরিস্থিতি পরিহার করুন, যাতে আপনার রক্তে সুগারের পরিমাণ কমে যায়। বিশেষ করে ডায়াবেটিস আছে যাদের, তাদের পকেটে সব সময় চকোলেট রাখুন।

 অনেকক্ষণ না খেয়ে থাকবেন না।

এক স্থানে অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকবেন না।

গরমকালে প্রচুর পানি পান করুন।

এই বিভাগের আরো খবর