• বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৮

  • || ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
প্রশিক্ষিত সামরিক বাহিনী গঠনে বিভিন্ন পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছি বাংলাদেশ আর পিছিয়ে যাবেনা, এগিয়ে যাবে : প্রধানমন্ত্রী যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সদাপ্রস্তুত পার্বত্য শান্তিচুক্তির ফলে দীর্ঘদিনের সংঘাতের অবসান ঘটে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বিশ্বের ইতিহাসে বিরল ঘটনা: প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়ীদের দেশের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ২৪ বছরে পার্বত্য শান্তি চুক্তি আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না: প্রধানমন্ত্রী গাড়ি ভাঙচুর-আগুন দিলেই ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল উদ্বোধন ও জয়িতা টাওয়ারের ভিত্তি স্থাপন সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছে ঢাবি: প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ বাংলাদেশকে অব্যাহত সমর্থন দেবে ওমিক্রন: করণীয় নির্ধারণে বৈঠকে ১৮ মন্ত্রণালয় রাজস্ব বোর্ডকে সেবাধর্মী, জনবান্ধব ও করদাতাবান্ধব করেছে সরকার ষড়যন্ত্র থাকবে, তবু দেশ এগিয়ে যাবে: প্রধানমন্ত্রী বৈদেশিক বিনিয়োগে বাংলাদেশের গুরুত্ব দিন দিন বাড়ছে: প্রধানমন্ত্রী অর্থনৈতিক অঞ্চলসমূহে ২৭ বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ প্রস্তাব পেয়েছি বিনিয়োগ শীর্ষ সম্মেলন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী বিজনেস সামিট বিনিয়োগ বাজার তৈরি করবে: প্রধানমন্ত্রী তৃতীয় ধাপে এক হাজার ইউপিতে ভোটগ্রহণ শুরু

২০২৩ সালে প্রিপেইড মিটার স্থাপন কার্যক্রম দৃশ্যমান কারার সুপারিশ

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ২৩ নভেম্বর ২০২১  

২০২৩ সালের মধ্যে সংস্থাগুলোর নিজস্ব অর্থায়নে বিদ্যুৎ ও গ্যাসে  মানসম্মত প্রিপেইড মিটার স্থাপন কার্যক্রম দৃশ্যমান পর্যায়ে নিয়ে আসার সুপারিশ করেছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

সোমবার কমিটির সভাপতি ওয়াসিকা আয়শা খানের সভাপতিত্বে সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সভায় এ সুপারিশ করা হয়।

কমিটি সদস্য বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, মো. নুরুল ইসলাম তালুকদার, মো. আসলাম হোসেন সওদাগর, মোছা. খালেদা খানম এবং নার্গিস রহমান সভায় অংশগ্রহণ করেন।

সভায় ১৯তম সভার কার্যবিবরণী নিশ্চিতকরণ এবং গৃহীত সিদ্ধান্তগুলো বাস্তবায়নের অগ্রগতি, গভীর ও অগভীর সমুদ্রে তেল, গ্যাসসহ খনিজ সম্পদ অনুসন্ধানে সীমাবদ্ধতা ও তা দূরীকরণে গৃহীত পরিকল্পনা এবং বিপিসি (বিপিসি) অনুসৃত উৎসে কর প্রদান পদ্ধতি এবং গত ১০ বছরের লাভ ক্ষতি, প্রযোজ্য কর উপাত্ত সমন্বয় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়।

সভায় প্রকৃত তথ্য জানার জন্য বিপিসি (বিপিসি)  অনুসৃত উৎসে কর প্রদান পদ্ধতি এবং গত ১০ বছরের লাভ ক্ষতি, প্রযোজ্য কর উপাত্ত সমন্বয় করার যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের পরামর্শ দেওয়া হয়।

কমিটি গণপরিবহনে কোন জ্বালানি কী পরিমাণে ব্যবহার হচ্ছে; তার প্রকৃত তথ্য উপাত্ত জানার লক্ষ্যে জরিপ করার জন্য মন্ত্রণালয়কে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের পরামর্শ  প্রদান করে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যানসহ মন্ত্রণালয় ও সংসদ সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সভায়  উপস্থিত ছিলেন।