• বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৮

  • || ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
প্রশিক্ষিত সামরিক বাহিনী গঠনে বিভিন্ন পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছি বাংলাদেশ আর পিছিয়ে যাবেনা, এগিয়ে যাবে : প্রধানমন্ত্রী যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সদাপ্রস্তুত পার্বত্য শান্তিচুক্তির ফলে দীর্ঘদিনের সংঘাতের অবসান ঘটে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বিশ্বের ইতিহাসে বিরল ঘটনা: প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়ীদের দেশের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ২৪ বছরে পার্বত্য শান্তি চুক্তি আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না: প্রধানমন্ত্রী গাড়ি ভাঙচুর-আগুন দিলেই ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল উদ্বোধন ও জয়িতা টাওয়ারের ভিত্তি স্থাপন সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছে ঢাবি: প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ বাংলাদেশকে অব্যাহত সমর্থন দেবে ওমিক্রন: করণীয় নির্ধারণে বৈঠকে ১৮ মন্ত্রণালয় রাজস্ব বোর্ডকে সেবাধর্মী, জনবান্ধব ও করদাতাবান্ধব করেছে সরকার ষড়যন্ত্র থাকবে, তবু দেশ এগিয়ে যাবে: প্রধানমন্ত্রী বৈদেশিক বিনিয়োগে বাংলাদেশের গুরুত্ব দিন দিন বাড়ছে: প্রধানমন্ত্রী অর্থনৈতিক অঞ্চলসমূহে ২৭ বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ প্রস্তাব পেয়েছি বিনিয়োগ শীর্ষ সম্মেলন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী বিজনেস সামিট বিনিয়োগ বাজার তৈরি করবে: প্রধানমন্ত্রী তৃতীয় ধাপে এক হাজার ইউপিতে ভোটগ্রহণ শুরু

আফ্রিকায় চুক্তিভিত্তিক চাষাবাদের সুযোগ কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০২১  

আফ্রিকা মহাদেশের বিভিন্ন দেশে জমি ইজারা নিয়ে ‘কন্ট্রাক্ট ফার্মিংয়ের (চুক্তিভিত্তিক চাষাবাদ)’ সুযোগ কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ। এরই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে গতকাল মঙ্গলবার ঢাকায় ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে যৌথভাবে সভাপতিত্ব করেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। বৈঠকে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান, পররাষ্ট্র সচিব এবং কৃষি, বাণিজ্য ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিগণ, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। আফ্রিকার দেশগুলোতে বাংলাদেশি কৃষক ও উদ্যোক্তারা কীভাবে চুক্তিভিত্তিক চাষাবাদের সুযোগ পেতে পারেন সে বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, আফ্রিকার দেশগুলোতে জমি ইজারা নেওয়ার মাধ্যমে চাষাবাদের সুযোগ পেলে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশির কর্মসংস্থান হতে পারে। আফ্রিকার দেশগুলোতে শান্তিরক্ষা মিশনগুলো চুক্তিভিত্তিক চাষাবাদের সুযোগের বিষয়ে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারে বলে তিনি মত দেন।

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বিপুল জনগোষ্ঠীর বাংলাদেশের জন্য বিদেশে চুক্তিভিত্তিক চাষাবাদ কর্মসংস্থান সৃষ্টির অন্যতম কার্যকর মাধ্যম হতে পারে। আফিকার দেশগুলোতে পণ্য উৎপাদন করে সেগুলো বাণিজ্যিকীকরণের জন্য বাংলাদেশিদের কাজের সুযোগ সৃষ্টি পারে বলে তিনি উল্লেখ করেন। এ ক্ষেত্রে তিনি উপযুক্ত দেশগুলোকে চিহ্নিত করার ওপর জোর দেন। 

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, পররাষ্ট্র, কৃষি ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় প্রাথমিকভাবে পাইলট প্রকল্প হিসেবে চুক্তিভিত্তিক চাষাবাদের সুযোগ সৃষ্টির জন্য একসঙ্গে কাজ করতে পারে। তিনি এ ক্ষেত্রে আফ্রিকার সম্ভাবনাময় দেশগুলোর সঙ্গে কাঠামো চুক্তি সই করার ওপরও জোর দেন।