• সোমবার   ১৬ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২ ১৪২৯

  • || ১৩ শাওয়াল ১৪৪৩

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি খাদ্য সাশ্রয় করুন: প্রধানমন্ত্রী সবাই স্বাধীনভাবে সরকারের সমালোচনা করতে পারে: প্রধানমন্ত্রী ‌ঢাকায় বসে সমালোচনা না করে গ্রামে ঘুরে আসুন বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছে ফেলতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী আমিরাতের নতুন প্রেসিডেন্টকে রাষ্ট্রপতির অভিনন্দন শেখ হাসিনাকে স্পেনের সরকার প্রধানের শুভেচ্ছা পি কে হালদার গ্রেফতার নানামুখী ষড়যন্ত্র হচ্ছে, সতর্ক থাকতে বললেন প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে সমর্থন দেওয়ার প্রত্যয় এডিবির ভাইস প্রেসিডেন্টের আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক আমিরাতের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের চার বছর পূর্তি আজ নারী খেলোয়াড়দের আরও সুযোগ দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ‘খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক চর্চা একটি জাতির জন্য অপরিহার্য’ ফ্ল্যাটে বাস করে শিশুরা ফার্মের মুরগির মতো হয়ে যাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার দেয়া হচ্ছে ৮৫ ক্রীড়া ব্যক্তিত্বকে রাষ্ট্রপতির সাজেক সফর স্থগিত একনেকে ৫ হাজার ৮২৫ কোটি টাকার ১১ প্রকল্প অনুমোদন যুক্তরাষ্ট্র থেকে বর্ধিত বিনিয়োগ চান প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি করতে প্রস্তুত বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী

‘ফ্রি ফায়ার গেম’ খেলে মানসিক ভারসাম্যহীন কিশোর

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ১৪ মে ২০২২  

যশোরে ‘ফ্রি ফায়ার গেম’ এ আসক্ত হয়ে তামিম হোসেন (১৭) নামে এক কিশোর মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে। সে ঝিকরগাছা উপজেলার সৈয়দপাড়া গ্রামের সাবুর আলীর ছেলে।

তামিম হোসেনের পরিবার জানায়, দীর্ঘদিন ধরে মোবাইল ফোনে ’ফ্রি ফায়ার গেম’ খেলে আসছিল তামিম। গেমে এতটাই আসক্ত হয়ে পড়ে যে খাওয়া, পড়ালেখাসহ কোনো কিছুতে মন ছিল না তার। অনেক বিধিনিষেধের পরেও তাকে গেম খেলা থেকে বিরত রাখা যাচ্ছিল না।

ধীরে ধীরে মোবাইল গেমে আসক্ত হয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে তামিম হোসেন। মোবাইল কেড়ে নিলেও সে খালি হাতেই গেম খেলার অঙ্গভঙ্গি শুরু করে। এ অবস্থায় তার দু’হাত বেঁধে রাখা শুরু করে পরিবারের লোকজন। এদিকে তামিমের এমন পরিস্থিতিতে চরমভাবে ভেঙে পড়েছেন তার মা-বাবা ও স্বজনরা।

এ বিষয়ে তামিমের বাবা সাবুর আলী বলেন, ‘গেমে আসক্ত শিশু-কিশোরদের খবর শুনেছি। কিন্তু আজ আমার নিজের সন্তান এই গেমে আসক্ত হয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়েছে। তাকে স্থানীয়ভাবে এবং জেলা শহরে নিয়ে চিকিৎসক দেখিয়েছি। কোনো ফল পায়নি। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সব অভিভাবক, শিশু কিশোর ও সচেতন মহলের কাছে অনুরোধ আপনার আদরের সন্তানের হাতে মোবাইল ফোন দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। মোবাইল দিলে সেটার যথাযথ ব্যবহার সম্পর্কে দৈনিক খোঁজখবর নিন। অন্যথায় দেরি হয়ে গেলে আমার সন্তানের মতো সেও মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে যেতে পারে।’