• সোমবার   ১৫ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ৩১ ১৪২৯

  • || ১৬ মুহররম ১৪৪৪

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
জাতির পিতার মৃত্যু নেই প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে বঙ্গবন্ধু আমাদের রোল মডেল শোক দিবসে বঙ্গভবনে বিশেষ দোয়ার আয়োজন রাষ্ট্রপতির টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর বিষয়ে পরিষ্কার ব্যাখ্যার নির্দেশ বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত মানবাধিকার কমিশনকে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির ৪০০তম ওয়ানডে খেলার অপেক্ষায় বাংলাদেশ জ্বালানি নিরাপত্তা: বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার অবদান রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে বঙ্গমাতার মনোভাব প্রতিফলিত হয়েছে বঙ্গমাতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা স্বাধীনতার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর সারথি ছিলেন আমার মা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গমাতা কঠিন দিনগুলোতে ছিলেন দৃঢ় ও অবিচল: রাষ্ট্রপতি ফজিলাতুন নেছা মুজিব দৃঢ়চেতা-বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ বাংলাদেশে সহায়তা অব্যাহত রাখবে চীন: ওয়াং ই চীনে ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে বাংলাদেশ মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছি মায়ের দুধ শিশুর সর্বোত্তম খাবার: রাষ্ট্রপতি শেখ কামাল ছিলেন ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনা সুকুমার মনোবৃত্তির মানুষ

৩৮ মণের `মহারাজা`র দাম ২২ লাখ টাকা

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ৬ জুলাই ২০২২  

কোরবানি ঈদের আর মাত্র চারদিন বাকি। ঈদকে ঘিরে পশু বিক্রি নিয়ে ব্যস্ততম সময় পার করছেন খামারিরা।

দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার আপেল ডেইরি ফার্মের মালিক আপেল আহাম্মেদ ঈদে বিক্রির জন্য পালছেন ৩৮ মণ ওজনের একটি গরু। নাম রেখেছেন মহারাজা।

মহারাজার দৈর্ঘ্য প্রায় ১০ ফুট আর উচ্চতা প্রায় ছয় ফুট। তাকে খাবার দেওয়া থেকে শুরু করে গোসল করানোসহ বিভিন্ন পরিচর্যার জন্য দুইজন কর্মচারী নিয়োজিত থাকেন।

পরিচর্যাকারী নিতাই রায় বলেন, সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মহারাজাকে পাঁচ বার খাবার দেওয়া হয়। খড়কুটো, বেশন, ব্রান, খৈলসহ কয়েক ধরনের গো-খাদ্য খাওয়ানো হয়। দিনে চার থেকে পাঁচ গোসল করাতে হয়। মশার কামড় থেকে বাঁচার জন্য মশানাশক ওষুধ স্প্রে করতে হয়।

খামারি আপেল আহাম্মেদ বলেন, প্রায় পাঁচ বছর ধরে ফ্রিজিয়ান জাতের আড়িয়া গরুটিকে পালন করছি। গত ঈদে 'মহারাজার' ওজন ছিল ৩২ মণ। সেবার স্থানীয় ব্যবসায়ীরা ছয় লাখ টাকা পর্যন্ত দাম বলেছিল। করোনার কারণে অনলাইনে গরু বিক্রি হচ্ছিল বেশি। আর মহারাজাকে ঢাকায় বিক্রি করতে নিয়ে গিয়ে সুবিধা করতে না পারায় আবার ফেরত আনি। বর্তমানে গরুটির দৈর্ঘ্য প্রায় ১০ ফুট আর উচ্চতা প্রায় ছয় ফুট হয়েছে। দাম ২২ লাখ টাকা চাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, মহারাজাকে কোনো প্রকার ক্যামিকেল ছাড়াই দেশীয় গোখাদ্য খাওয়ানো হয়। গরুটি দেখতে প্রতিদিনই অনেক লোকজন আসেন। আমার মনে হয় মহারাজাই জেলার সবচেয়ে বড় গরু।