• বৃহস্পতিবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৭ ১৪২৯

  • || ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর ব্যাংক খাতের পরিস্থিতি জানানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ১০ ডিসেম্বর বিএনপির মহাসমাবেশ, পরিবহন ধর্মঘট না ডাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা সংঘাত-দুর্যোগে নারীদের দুর্দশা বহুগুণ বাড়ে: প্রধানমন্ত্রী সচিবদের যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী জিয়া-খালেদা-তারেক খুনি: প্রধানমন্ত্রী জেলা-উপজেলা পর্যায়ে কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল হবে: প্রধানমন্ত্রী দুপুরে সচিবদের নিয়ে বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে ডা. মিলনের আত্মত্যাগ নতুন গতি সঞ্চার করে ডা. মিলন এক উজ্জ্বল নক্ষত্র: রাষ্ট্রপতি ‘যারা গ্রেনেড দিয়ে আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে, তাদের সঙ্গে আলোচনা? যারা উন্নয়ন দেখে না, তারা চাইলে চোখের ডাক্তার দেখাতে পারে- প্রধানমন্ত্রী অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে সক্ষম হয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

ইউরিক এসিড বাড়লে আতঙ্কিত হবেন না

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ২৭ অক্টোবর ২০২২  

মানবদেহের বিপাকপ্রক্রিয়ায় ইউরিক এসিড তৈরি হয়। এটি স্বাভাবিক ঘটনা। তবে মাত্রার অধিক ইউরিক এসিড শরীরের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। এক ধরনের বাতের ব্যথার সঙ্গে এর সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে।

এই বাতের ব্যথাটি গাউট হিসেবে পরিচিত। গাউট একটি প্রদাহজনিত বাত, যা সচরাচর একটি অস্থিসন্ধিকেই প্রাথমিকভাবে আক্রান্ত করে। পুরুষদের মধ্যে গাউট রোগটি বেশি দেখা যায়। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও বাড়ে। স্থূলকায় হলেও ঝুঁকি বেশি থাকে।

কারণ

কারো শরীরে ইউরিক এসিড বাড়লেই তার বাতরোগটি হবে তা নয়। বংশগতির সঙ্গে বর্ধিত ইউরিক এসিডের মিলিত প্রভাবই এই বাতরোগ প্রকাশ করে। বংশগতির যোগ না থাকলে বাড়তি ইউরিক এসিড কোনো সমস্যা না-ও করতে পারে। ঝুঁকিতে থাকা ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে কেলাস বা স্ফটিকের ছোট ছোট দানার রূপ নিয়ে অস্থিসন্ধির ভেতরে ও আশপাশে জমা হয় ইউরিক এসিড। এর ফলে প্রদাহ সৃষ্টি হয়।

শরীরে ইউরিক এসিড তিনভাবে জমা হয়। খাবার গ্রহণের মাধ্যমেও ইউরিক এসিড বাড়তে পারে। লাল মাংস, মগজ, কলিজা, বৃক্ক, নাড়িভুঁড়ি, সামুদ্রিক খাদ্য, তেলযুক্ত মাছ—এ সব কিছুই শরীরে ইউরিক এসিড বাড়ায়। আবার শরীর বিপাকপ্রক্রিয়ায় অধিক পরিমাণ ইউরিক এসিড তৈরি করেও রক্তে ইউরিক এসিড বাড়িয়ে দিতে পারে। বৃক্ক ও অন্ত্রের মাধ্যমে ইউরিক এসিড নিষ্কাশন যথাযথ না হলেও এটি শরীরে ইউরিক এসিড বাড়ার অন্যতম কারণ হিসেবে দেখা দেয়। বেশির ভাগ রোগীর ক্ষেত্রে শেষের কারণটিই খাটে।

লক্ষণ

♦ অত্যন্ত তীব্র ব্যথা অনুভব হয়

♦ অস্থিসন্ধি ও আশপাশের ত্বক লালাভ হয়ে ওঠে

♦ আক্রান্ত স্থানের পুরোটাই ফুলে যায়

পাঁচ-সাত দিনের মধ্যে এটি সম্পূর্ণ ভালো হয়ে যেতে পারে। তবে কারো ক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা রয়ে যায়। দীর্ঘমেয়াদি সমস্যার ক্ষেত্রে কিডনিতে ইউরিক এসিডের পাথরজাতীয় বস্তু জমা হতে পারে, যা কিডনির কার্যক্ষমতা ব্যাহত করে।

করণীয়

শরীরে বাড়তি ইউরিক এসিড পাওয়া গেলেই আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী পরীক্ষা ও রোগ নির্ণয় সাপেক্ষে চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে। দীর্ঘমেয়াদি গাউট রোগে জন্যও প্রতিরোধী ওষুধ রয়েছে। এ জন্য অবশ্যই বাতের ব্যথা বিশেষজ্ঞ রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ সেবন আবশ্যক। ইউরিক এসিড বাড়িয়ে দিতে পারে এমন ওষুধ সেবন বন্ধ করার প্রয়োজন হতে পারে। এ ছাড়া ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে এবং যেসব খাবার (যেমন লাল মাংস, সামুদ্রিক খাদ্য ইত্যাদি) ইউরিক এসিড বাড়ায় সেসব খাবার কম পরিমাণে খেতে হবে।