• সোমবার   ১৫ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ৩১ ১৪২৯

  • || ১৬ মুহররম ১৪৪৪

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
জাতির পিতার মৃত্যু নেই প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে বঙ্গবন্ধু আমাদের রোল মডেল শোক দিবসে বঙ্গভবনে বিশেষ দোয়ার আয়োজন রাষ্ট্রপতির টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর বিষয়ে পরিষ্কার ব্যাখ্যার নির্দেশ বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত মানবাধিকার কমিশনকে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির ৪০০তম ওয়ানডে খেলার অপেক্ষায় বাংলাদেশ জ্বালানি নিরাপত্তা: বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার অবদান রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে বঙ্গমাতার মনোভাব প্রতিফলিত হয়েছে বঙ্গমাতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা স্বাধীনতার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর সারথি ছিলেন আমার মা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গমাতা কঠিন দিনগুলোতে ছিলেন দৃঢ় ও অবিচল: রাষ্ট্রপতি ফজিলাতুন নেছা মুজিব দৃঢ়চেতা-বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ বাংলাদেশে সহায়তা অব্যাহত রাখবে চীন: ওয়াং ই চীনে ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে বাংলাদেশ মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছি মায়ের দুধ শিশুর সর্বোত্তম খাবার: রাষ্ট্রপতি শেখ কামাল ছিলেন ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনা সুকুমার মনোবৃত্তির মানুষ

দূর্গম চরে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পরিদর্শনে জেলা প্রশাসক

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ১৫ জুলাই ২০২১  

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ মুজিবশতবর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে পটুয়াখালীর সাগর ও নদী বেষ্টিত দূর্গম রাঙ্গাবালী উপজেলায় গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারের জন্য নির্মিত হচ্ছে সুদৃশ্য রঙিন টিনশেডের সেমিপাকা ঘর। আশ্রয়ণপ্রকল্প-২ এর আওতায় দ্বিতীয় ধাপে দুই শতক জমির মালিকানাসহ সেমিপাকা ঘর নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে এসব পরিবারের জন্য। গতকাল সকালে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্পের নির্মাণাধীন এসব ঘর পরিদর্শনে দূর্গম এলাকা রাঙ্গাবালীতে আসেন পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ কামাল হোসেন।

স্পীডবোটযোগে রাঙ্গাবালী উপজেলায় পা রাখার পরে বৃষ্টি উপেক্ষা করে কাঁদা মাটিতে মটর সাইকেল নিয়ে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর ঘরগুলো পরিদর্শনে নামেন তিনি। উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের গহীনখালী, রাঙ্গাবালী ইউনিয়নের চর মাদারবুনিয়া ও বাহেরচরের শতাধিক ঘর পরিদর্শন করেন এবং ভূমিহীন অসহায় পরিবারের খোঁজ খবর নেন। জেলা প্রশাসকের আগমনে অসহায় গৃহহীনরা খুশিতে আত্মহারা হয়েছেন। অনেকেই আবার ঘর পেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে নিজেদের অনুভূতি প্রকাশ করেন প্রকাশ করেন জেলা প্রশাসকের কাছে।

ঘর পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গাবালী উপজেলা চেয়ারম্যান ডা.জহির উদ্দিন আহম্মেদ, রাঙ্গাবালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.মাশফাকুর রহমান, রাঙ্গাবালী সদর ্ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধাণ সম্পাদক সাইদুজ্জামান মামুন। 

উল্লেখ্য, আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় রাঙ্গাবালী উপজেলায় দ্বিতীয়ধাপে ৭৭৬টি ঘর নির্মণ করা হচ্ছে।  প্রতিটি ঘরে থাকছে দুটি বেডরুম, একটি টয়লেট ও রান্না ঘর। একেকটি ঘর নির্মাণে ব্যায় হয়েছে ১ লাখ ৯১ হাজার টাকা। এর আগে প্রথমধাপে রাঙ্গাবালী উপজেলায় ৪৯১টি পরিবারকে ঘর দেয়া হয়েছিল।