• বৃহস্পতিবার   ০৭ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ২২ ১৪২৯

  • || ০৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
এলাকাভিত্তিক লোডশেডিংয়ের সূচি তৈরির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল ডিভাইস আমরা রপ্তানি করব : প্রধানমন্ত্রী ২০৪১ সালে স্মার্ট বাংলাদেশ করা হবে: প্রধানমন্ত্রী বঞ্চিত মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে দেশে ফিরেছিলাম: প্রধানমন্ত্রী ইনকিউবেটরের হাত ধরে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করবেন না: প্রধানমন্ত্রী অনেক দেশেই এখন বিদ্যুতের জন্য হাহাকার: প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে মানুষ স্বতস্ফূর্তভাবে ভোট দিতে পেরেছে বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর প্রতি বর্গফুট গরুর চামড়া ৪৭, খাসি ‌১৮ টাকা নির্ধারণ কাউকে যেন কষ্ট না পেতে হয়: প্রধানমন্ত্রী ভিভিআইপিদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন: পিজিআরকে রাষ্ট্রপতি জাতির পিতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা, মোনাজাত পদ্মা সেতুতে সন্তানদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সেলফি ‘পদ্মা সেতু ও রপ্তানি আয় জাতির সক্ষমতা প্রমাণ করছে’ টোল দিয়ে পদ্মা সেতুতে উঠলেন প্রধানমন্ত্রী, গাড়ি থামিয়ে উপভোগ করলেন সৌন্দর্য পদ্মা সেতু নির্মাণের সব কৃতিত্ব জনগণের: প্রধানমন্ত্রী সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্তরিকতায় দেশকে এগিয়ে নিতে পেরেছি পারিবারিক আদালত আইনের খসড়া অনুমোদন ঈদের আগে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলছে না

পদ্মাকে ঘিরে কর্মচঞ্চল কুয়াকাটার স্থবির বিনিয়োগ

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ২১ জুন ২০২২  

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ পদ্মা সেতুর উদ্ভোধনকে ঘিরে কর্মচঞ্চল হয়ে উঠেছে পর্যটন নগরী কুয়াকাটার স্থবির হয়ে পড়া কয়েক হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ প্রকল্প। দেশী-বিদেশী এসব বড় বিনিয়োগে দ্রুত বিকাশমান এ পর্যটন খাতে তৈরি হচ্ছে দক্ষ-অদক্ষ কয়েক হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের। কুয়াকাটা উন্নয়ন মাস্টারপ্লান বাস্তবায়নসহ অভ্যান্তরীন অবকাঠামোর উন্নয়ন এবং দর্শনীয় স্থানগুলোর সংযোগ সড়কের উন্নয়ন করা হলে শুধু পর্যটন সম্ভাবনা কিংবা শিল্পায়ন নয়, কুয়াকাটা হয়ে উঠবে দেশের বিশেষ পর্যটন অর্থনৈতিক অঞ্চল।

সৈকতের একই জায়গায় দাঁড়িয়ে সুর্যোদয় ও সুর্যান্ত দেখার জন্য দেশী-বিদেশী পযটকদের কাছে কুয়াকাটার রয়েছে আলাদা সুখ্যাতি। বিশাল সমুদ্র, উপকূলের সবুজ প্রকৃতি, ১৮ কিলোমিটার দীর্ঘ এবং প্রসস্থ বেলাভূমি ভ্রমণ পিয়াসুদের কাছে কুয়াকাটাকে পরিচিত ‘সাগরকন্যা’ নামে। কিন্তু পদ্মা নদী পরাপারসহ সড়ক পথের দীর্ঘ ভ্রমন ক্লান্তি পর্যটকদের জন্য হয়ে পড়ে বিড়াম্বনার কারন। পর্যটকরা মুখ ফিরিয়ে নেয়ায় থমকে পড়ে এখানকার কয়েক হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ।

নিজেদের টাকায় স্বপ্ন এবং প্রত্যাশার পদ্মা সেতুর বাস্তবায়নে এখন বদলে গেছে দৃশ্যপট। পুরনোসহ নতুন বিনিয়োগকারীরা আধুনিক র্নিমান শৈলির পর্যটন অবকাঠামো তৈরিতে করছেন মোটা অংকের বিনিয়োগ। দ্রুত গড়ে উঠছে দৃস্টি নন্দন আবাসিক হোটেল, মোটেল, কটেজ, খাবার হোটেল। প্রান ফিরে পেয়েছেন পুরনো বিনিয়োগকারীরা। লোকসানের বোঝা লাঘব করতে শুরু করছেন তাদের স্থাপনায় নতুন আদল দিতে।

ব্যবসায়ীরা জানান, বিদ্যমান বড়-মাঝারী-ছোট প্রায় আড়াই’শ হোটেল-মোটেল-কটেজে ১৫ হাজার পর্যটককে আতিথেয়তা দেয়ার সক্ষমতা রয়েছে। পর্যটকদের চাপ সামলাতে দীর্ঘ বছর ধরে আবাসিক সক্ষমতা বাড়ানোর প্রয়োজন ছিল। আনেকেই জমি কিনে বছরের পর বছর ফেলে রেখেছেন। পর্যটকদের চাপ কম থাকায় বিনিয়োগ নিয়ে দোটানায় ছিলেন। পদ্মা সেতুর বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে তাদের অনেকেই এ খাতে বিনিয়োগ শুরু করে দিয়েছেন।

বেশ কয়েকজন বিনিয়েগকারী বলেন, কুয়াকাটার বিনিয়োগের বড় বাঁধা ভবনের অনুমোদন, জমি ক্রয়-বিক্রয়ে পারমিশন, তফসিলি ব্যাংকের ঋন প্রদানের জটিল প্রক্রিয়া, বিমান বন্দর স্থাপনে দীর্ঘসূত্রিতা। এছাড়াও রয়েছে দর্শনীয় স্থান ভ্রমনের সংযোগ সড়কগুলোর বেহাল দশা, সৈকতের গুরুত্বপূর্ন স্থানে আলোর ব্যবস্থা না থাকা। কুয়াকাটা বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির ধীরগতির কার্যক্রম। এরচেয়েও ভয়াবহ বাঁধা হল, সৈকতের অব্যাহত বালু ক্ষয়ের ফলে প্রতিনিয়ত ভাঙ্গন। এসব বাঁধা অপসারনে সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে।     

পর্যটন ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম শফি বলেন, বিনিয়েগকারীসহ এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবী কুয়াকাটার ভাঙ্গন রোধে গ্রোয়েন বাঁধ র্নিমানের। উপকূলের সবুজ বানানীকে রক্ষা করতে হবে।  
কুয়াকাটা হোটেল-মোটেল ওনার্স এসোশিয়েসনের সেক্রেটারী জেনারেল মোতালেব শরীফ বলেন, পদ্মা সেতু কুয়কাটার পর্যটন শিল্পে প্রানসঞ্চান করেছে। এতে করে আগামী দিনগুলোতে কুয়াকাটায় দেশী-বিদেশী পর্যটকের আগমন বাড়বে। পর্যটকদের সুন্দরবন, জাহাজমারা, সোনার চরে ভ্রমনের জন্য সী-ক্রুজ চালুর প্রচেস্টা চলছে।

কুয়াকাটা পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদার বলেন, দর্শনীয় স্থানসহ সংযোগ সড়কের উন্নয়ন করা গেলে দ্রুত বিকাশমান কুয়াকাটার পযটন খাত থেকে প্রতিবছর আয় হবে কয়েক হাজার কোটি টাকার রাজস্ব।

পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেন, পদ্মা সেতুকে ঘিরে দ্রুতই একটি আধুনিক আর্ন্তজাতিক পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে বিকশিত হবে কুয়াকাটা। নতুন করে কর্মসংস্থান তৈরি হচ্ছে অন্তত: কয়েক হাজার দক্ষ-অদক্ষ মানুষের।

মৎস্য ও প্রানী সম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, পর্যটনকে ঘিরে এ অঞ্চলের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিসহ শিল্পায়নে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রাখবে পদ্মা সেতু।