• বৃহস্পতিবার   ০৭ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ২২ ১৪২৯

  • || ০৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
এলাকাভিত্তিক লোডশেডিংয়ের সূচি তৈরির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল ডিভাইস আমরা রপ্তানি করব : প্রধানমন্ত্রী ২০৪১ সালে স্মার্ট বাংলাদেশ করা হবে: প্রধানমন্ত্রী বঞ্চিত মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে দেশে ফিরেছিলাম: প্রধানমন্ত্রী ইনকিউবেটরের হাত ধরে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করবেন না: প্রধানমন্ত্রী অনেক দেশেই এখন বিদ্যুতের জন্য হাহাকার: প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে মানুষ স্বতস্ফূর্তভাবে ভোট দিতে পেরেছে বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর প্রতি বর্গফুট গরুর চামড়া ৪৭, খাসি ‌১৮ টাকা নির্ধারণ কাউকে যেন কষ্ট না পেতে হয়: প্রধানমন্ত্রী ভিভিআইপিদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন: পিজিআরকে রাষ্ট্রপতি জাতির পিতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা, মোনাজাত পদ্মা সেতুতে সন্তানদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সেলফি ‘পদ্মা সেতু ও রপ্তানি আয় জাতির সক্ষমতা প্রমাণ করছে’ টোল দিয়ে পদ্মা সেতুতে উঠলেন প্রধানমন্ত্রী, গাড়ি থামিয়ে উপভোগ করলেন সৌন্দর্য পদ্মা সেতু নির্মাণের সব কৃতিত্ব জনগণের: প্রধানমন্ত্রী সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্তরিকতায় দেশকে এগিয়ে নিতে পেরেছি পারিবারিক আদালত আইনের খসড়া অনুমোদন ঈদের আগে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলছে না

পদ্মাসেতু নিয়ে বেফাঁস মন্তব্যের জন্য বিব্রত বিএনপি-খালেদা জিয়া

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ২৩ জুন ২০২২  

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া বলেছিলেন, পদ্মাসেতু বানাতে পারবে না আওয়ামী লীগ সরকার। আর সেতু হলেও কেউ তাতে চড়বে না। খালেদা জিয়ার সেই অনুমান ভুল প্রমাণিত হয়েছে। স্বপ্নের পদ্মাসেতু উদ্বোধন হচ্ছে ২৫ জুন। যার ফলে পদ্মাসেতু নিয়ে সেই মন্তব্যে বিব্রত বিএনপি ও খালেদা জিয়া।

জানা গেছে, পদ্মাসেতু নিয়ে করা মন্তব্যের কারণে লজ্জিত খালেদা জিয়াও। এরইমধ্যে পদ্মাসেতু দেখে মানসিকভাবে অস্বস্তিতে পড়েছেন। তিনি মুখ দেখাতে পারছেন না আত্মীয়-স্বজনদের কাছে। পদ্মাসেতুর বিরোধিতা করার কারণে এখন দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের কাছেও ক্ষমা চাইতে চান খালেদা জিয়া।

মূলত পদ্মাসেতু নিয়ে শুরু থেকেই খালেদা জিয়া বিরোধিতা করেছিলেন। কটাক্ষ করেছেন, সরকারি উদ্যোগের ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ করেন। দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগও তুলেছেন। সরকার এতবড় কর্মযজ্ঞ সাধন করতে পারবে না বলেও মন্তব্য করেন বিএনপি নেত্রী। কিন্তু সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় স্বপ্ন আজ বাস্তবতা। ২৫ জুনের উদ্বোধনের তারিখ ঘোষণার পর চরম বিব্রত ও লজ্জায় পড়েছেন খালেদা জিয়া।

খালেদা জিয়ার গুলশানের বাড়ি ফিরোজার গোপন সূত্র বলছে, খালেদা জিয়ার দৃঢ় বিশ্বাস ছিল, সরকার পদ্মাসেতুর কাজ সম্পন্ন করতে পারবে না। বৈদেশিক ঋণ নেবে, এমনকি সহায়তাও চাইবে। কিন্তু বর্তমান সরকার নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতুকে পুরোপুরি দৃশ্যমান করেছে। তার অনুমান ভুল প্রমাণিত হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে চিন্তা করে তিনি মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।

এ বিষয় রাজনীতি বিশ্লেষক ও বুদ্ধিজীবীরা বলেন, পদ্মাসেতুর বিরোধিতা করে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের সঙ্গে খালেদ জিয়া অন্যায় করেছেন। যেহেতু পদ্মাসেতু আজ দৃশ্যমান তাই এটির আর বিরোধিতা করা বা সমালোচনা করা বিএনপির কোনোভাবেই সমীচীন হবে না। পদ্মাসেতুর কারণে দক্ষিণাঞ্চলে সরকারি দলের ভোট ব্যাংক আরো শক্তিশালী হবে এবং বিএনপির অবস্থান আরো দুর্বল হয়ে পড়বে।