• রোববার ২১ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৬ ১৪৩১

  • || ১৩ মুহররম ১৪৪৬

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী : প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বমানের খেলোয়াড় তৈরি করুন চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

রাতে ভয়ংকর স্বপ্ন দেখলে যে আমল করবেন

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ২ জুন ২০২৪  

স্বপ্ন সবাই দেখে। তা দেখে কেউ হাসে আবার কেউ কাঁদে। ভালো কিছু দেখে পুলকিত হয়। আর ভয়ংকর কিছু দেখে আঁতকে ওঠে। এ রকম ভয়ংকর স্বপ্ন দেখলে, কী আমল করার কথা বলেছেন আমাদের প্রিয় নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম, চলুন সে সম্পর্কে জেনে নেই।

স্বপ্ন তিন ধরনের -- এক. ভালো স্বপ্ন, যা মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে সুসংবাদস্বরূপ। দুই. অপছন্দনীয় স্বপ্ন, যা শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে দেখানো হয়। এর দ্বারা আদম সন্তান চিন্তিত হয় এবং শয়তান তাকে নিয়ে ঘুমের মধ্যে খেলা করতে পারে। তিন. জাগ্রত অবস্থায় যে বিষয়ে মানুষ নিজে নিজে কথা বলে অথবা চিন্তা করে -- সে বিষয়টি ঘুমে স্বপ্নের মধ্যে দেখে। বলা যায়, এ স্বপ্নের মাঝে সাধারণত মানুষ তার জাগ্রত অবস্থার কর্মকাণ্ডগুলোই দেখে থাকে।

ভয়ংকর স্বপ্ন দেখলে যা করবেন
ভয়ংকর স্বপ্ন দেখলে অনিষ্ট ও ক্ষতি থেকে মহান আল্লাহর কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করা উত্তম। তিনবার  أَعُوْذُ بِاللهِ مِنَ الشَّيْطَانِ الرَّجِيْم (উচ্চারণ: আউজুবিল্লাহি মিনাশ শাইতানির রাজিম। অর্থ: বিতাড়িত শয়তান থেকে মহান আল্লাহর কাছে আশ্রয় চাই) পড়তে হবে। তাহলে এ স্বপ্ন কোনও ক্ষতি করতে পারে না। (মুসলিম: ২২৬২)

 এ ক্ষেত্রে হাদিসে আরও একটি দোয়া বর্ণিত হয়েছ। দোয়াটি হলো,
 
اَللَّهُمَّ اِنِّىْ اَعُوْذُبِكِ مِن شَرِّ هَذِهِ الرُّؤْيَا
উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা ইন্নি আউজু বিকা মিন শাররি হাজিহির রুইয়া। অর্থ: হে আল্লাহ, আমি আপনার কাছে এ ভয়ংকর স্বপ্নের অনিষ্ট থেকে আশ্রয় প্রার্থনা করছি।

শরীরের বাঁ দিকে তিনবার থুথু (বাতাসে আর্দ্র ধরনের) নিক্ষেপ করবে। যে কাত হয়ে ঘুমিয়ে ভয়ংকর স্বপ্ন দেখেছে, সে কাত পরিবর্তন করে অন্যদিকে মুখ ফিরিয়ে শোবে। অবস্থা বদলে দেয়ার ইঙ্গিতস্বরূপ এটা করা হয়ে থাকে। এমন স্বপ্ন দেখলে কারও কাছে বলবে না। আর নিজেও এর ব্যাখ্যা করতে চেষ্টা করবে না। (বুখারি: ৬৫৮৩; মুসলিম ২২৬১)

বিখ্যাত সাহাবি আবু সাঈদ খুদরি (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে আছে, নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যখন তোমাদের কেউ এমন স্বপ্ন দেখে, যা সে পছন্দ করে, তাহলে তা মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে। তাই সে যেন আল্লাহর প্রশংসা করে এবং অন্যের কাছে তা বর্ণনা করে। আর যদি এর বিপরীত অপছন্দনীয় কিছু দেখে, তাহলে তা শয়তানের পক্ষ থেকে। তাই সে যেন এর ক্ষতি থেকে মহান আল্লাহর আশ্রয় চায়। আর কারও কাছে যেন তা বর্ণনা না করে। তাহলে এ স্বপ্ন তার কোন ক্ষতি করবে না। (বুখারি: ৬৯৮৫)

ঘুমে ভীতসন্ত্রস্ত হলে যা করবেন --
أَعُوْذُ بِكَلِمَاتِ اللهِ التَّامَّاتِ مِنْ غَضَبِهِ وَعِقَابِهِ وَشَرِّ عِبَادِهِ وَمِنْ هَمَزَاتِ الشَّيَاطِيْنِ وَأَنْ يَّحْضُرُوْنِ
উচ্চারণ: আউজু বিকালিমাতিল্লাহিত তাম্মাতি মিন গাদাবিহী ওয়া ইকাবিহী ওয়া শাররি ইবাদিহী ওয়া মিন হামাযাতিশ শায়াতীনি ওয়া আইয়্যাহদুরুন। অর্থ: আমি মহান আল্লাহর পরিপূর্ণ কালিমার দ্বারা আশ্রয় চাই তার ক্রোধ ও শাস্তি হতে, তার বান্দাদের অনিষ্ট হতে, শয়তানদের কুমন্ত্রণা ও তাদের উপস্থিতি থেকে।
আর ভালো স্বপ্ন দেখলে মহান আল্লাহর কৃতজ্ঞতা আদায় করে বলবে --
 
اَلْحَمْدُ لِلّٰهِ
উচ্চারণ : আলহামদুলিল্লাহ। অর্থ: সমস্ত প্রশংসা মহান আল্লাহর জন্য।