• বুধবার ২৯ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪৩১

  • || ২০ জ্বিলকদ ১৪৪৫

আজকের পটুয়াখালী
ব্রেকিং:
বাংলাদেশ বিশ্ব শান্তি রক্ষায় এক অনন্য নাম : রাষ্ট্রপতি রাত ২টা পর্যন্ত নিজেই দুর্যোগ মনিটর করেছেন প্রধানমন্ত্রী রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ দ্রুত মেরামতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বৃহস্পতিবার পটুয়াখালী যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী আবহাওয়া স্বাভাবিক হলে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় যাবেন শেখ হাসিনা ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ার অগ্রযাত্রায় মার্কিন ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর জীবনীভিত্তিক ডকুমেন্টারি ‘কলকাতায় মুজিব’ অবলোকন ঢাকাবাসীকে সুন্দর জীবন উপহার দিতে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড় রেমাল : ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি ধর্মনিরপেক্ষতা মানে ধর্মহীনতা নয়: প্রধানমন্ত্রী সকালেই প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে রেমাল, আছড়ে পড়বে মধ্যরাতে ঘূর্ণিঝড় রেমাল : পায়রা ও মোংলা বন্দরে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত ঢাকায় কোনো বস্তি থাকবে না, দিনমজুররাও ফ্ল্যাটে থাকবে অগ্নিসংযোগকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারি বঙ্গবাজারে বিপণী বিতানসহ চারটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন নজরুলের বলিষ্ঠ লেখনী মানুষকে মুক্তি সংগ্রামে উদ্দীপ্ত করেছে জোটের শরিক দলগুলোকে সংগঠিত ও জনপ্রিয় করতে নির্দেশ সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে রেমাল বঙ্গবাজার বিপনী বিতানসহ ৪ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী কৃষিতে ফলন বাড়াতে অস্ট্রেলিয়ার প্রযুক্তি সহায়তা চান প্রধানমন্ত্রী

বিদেশি ঋণ পরিশোধে ১০ বছর সময় চায় শ্রীলঙ্কা

আজকের পটুয়াখালী

প্রকাশিত: ২১ মার্চ ২০২৩  

১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের ঔপনিবেশিক শাসন থেকে স্বাধীনতালাভের পর সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়া শ্রীলঙ্কা তার বকেয়া বিদেশি ঋণ পরিশোধের জন্য ১০ বছর সময় চেয়েছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে সোমবার এই আর্জি জানিয়েছেন।

সোমবার রাজধানী কলম্বোয় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের আয়োজিত এক সভায় বিক্রমাসিংহে বলেন, ‘আমরা চলতি বছর থেকেই বিদেশি ঋণ পরিশোধ করা শুরু করছি। আশা করছি, আগামী ১০ বছরের মধ্যে সম্পূর্ণ ঋণ আমরা পরিশোধ করতে পারব।

কীভাবে ঋণ পরিশোধ করবেন— সে সম্পর্কিত কোনো পরিকল্পনা বা ঋণ পরিশোধের প্রক্রিা পুনর্গঠন সম্পর্কে বিস্তারিত আর কিছু বলেননি তিনি। প্রসঙ্গত, বর্তমানে শ্রীলঙ্কার বকেয়া বিদেশি ঋণের পরিমাণ ৪ হাজার ৬০০ কোটি টাকা।

গুরুতর অর্থনৈতিক সংকটে ভুগতে থাকা দেশটি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম ঋণদাতা সংস্থা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফের) কাছে জরুরিভিত্তিতে ২৯০ কোটি ডলার ঋণ চেয়েছে। এই মুহূর্তে এ ঋণ শ্রীলঙ্কার জন্য কতটা প্রয়োজন, প্রেসিডেন্টের সোমবারের বক্তব্যে তার আভাসও পাওয়া গেছে।

‘আইএমএফের ঋণ পাওয়া গেলে আমরা হাঁফ ছেড়ে বাঁচব। আমাদের আর কেউ দেউলিয়া বলতে পারব না।

করোনা মহামারি এবং রাজাপাকসে ভাইদের নেতৃত্বাধীন সরকারের আর্থিক অপব্যয় ও ত্রুটিপূর্ণ করনীতি গ্রহণের কারণে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে ডলারের মজুত তলানিতে ঠেকে যাওয়ায় গত বছরের শুরু থেকে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকট চলছে শ্রীলঙ্কায়। সংকট এমন গুরুতর জায়গায় পৌঁছেছিল যে, খাদ্য-জ্বালানি-ওষুধের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য আমদানির জন্যও প্রয়োজনীয় ডলার ছিল না দেশটির সরকারের। ২০২২ সালের এপ্রিলে শ্রীলঙ্কার সরকার নিজেদের দেউলিয়া ঘোষণা করে।

ওই সময় দেশটির অর্থমন্ত্রী ছিলেন রনিল বিক্রমাসিংহে। পরে তিনি দেশটির প্রেসিডেন্ট হন, তবে এখনও অর্থমন্ত্রণালয় নিজের দায়িত্বেই রেখেছেন তিনি।

বিক্রমাসিংহের নেতৃত্বাধীন সরকার ইতোমধ্যে বিদেশি ঋণের কিস্তি পরিশোধের পরিকল্পনা পুনর্গঠন করেছে। সেই পরিকল্পনা কী— তা এখনও সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ করেননি তিনি। তবে শ্রীলঙ্কার অন্যতম বৃহৎ পাওনাদার দেশ এই পরিকল্পনা সমর্থন করেছে বলে জানা গেছে। এমনকি বকেয়া পরিশোধের দায় থেকে শ্রীলঙ্কাকে ২ বছর অব্যাহতি দেওয়া এবং দেশটিকে ঋণ প্রদানের জন্য আইএমএফকে সুপারিশও করেছে চীন।

এর আগে বিক্রমাসিংহে বলেছিলেন, চলতি মাসের শেষ দিকে ঋণের প্রথম কিস্তি ছাড় দেবে আইএমএফ।

এদিকে, আইএমএফের এক কর্মকর্তা এ ব্যাপারটি স্বীকার করে এএফপিকে জানিয়েছেন, চীন শ্রীলঙ্কার ঋণের কিস্তি পরিশোধের নতুন প্রস্তাব মেনে নিয়েছে বলেই ঋণের প্রথম কিস্তি পেয়েছে শ্রীলঙ্কা। বাকি কিস্তিগুলো পেতে হলে অবশ্যই নতুন এই প্রস্তাবে পাওনাদার সব দেশের সম্মতি লাগবে।

‘শ্রীলঙ্কাকে সবচেয়ে বেশি ঋণ দিয়েছে চীন। এ কারণে চীন শ্রীলঙ্কার পক্ষে থাকায় আইএমএফ ঋণের প্রথম কিস্তি ছাড় দিতে যাচ্ছে; কিন্তু যদি বাকি কিস্তিগুলো পেতে হয়, সেক্ষেত্রে পাওনাদার সব দেশের সম্মতি আদায় করতে হবে শ্রীলৃ্কাকে,’ বলেন আইএমএফের ওই কর্মকর্তা।